নির্বাচনী ইশতেহারে দক্ষিণাঞ্চলের কৃষি রক্ষার বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করতে হবে

দক্ষিণাঞ্চলের কৃষি রক্ষায় একমত খুলনার সকল রাজনৈতিক দল 

Leaders of different political parties in a photo session after completion of the Workshop on Right to Food and Agriculture
রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে খুলনার কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করায় একমত হলেন সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগের ঝুঁকি মোকাবেলা করে যাতে ক্ষুদ্র কৃষক ও উৎপাদকদের অধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব হয় সেজন্য সকলে একই সুরে জাতীয় পর্যায়ে দাবি তুলে ধরবেন বলে অঙ্গীকারবদ্ধ হন। 
গত ৩১ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার খুলনার স্থানীয় একটি হোটেলে উপকূলীয় জীবনযাত্রা ও পরিবেশ কর্মজোট (ক্লিন) ও খাদ্য নিরাপত্তা নেটওয়ার্ক (খানি) আয়োজিত ‘কৃষি ও খাদ্য অধিকার : প্রত্যাশিত জন-ইশতেহার’ শীর্ষক কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এ অঙ্গীকার করেন। সাংবাদিক গৌরাঙ্গ নন্দীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি), বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), জাতীয় পার্টি ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ ছাড়াও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি ও সাংবাদিকগণ অংশগ্রহণ করেন। 
কর্মশালায় বক্তারা বলেন, বর্তমানে শিল্প ও সেবাখাতে যে পরিমাণে ভর্তুকি ও অন্যান্য প্রণোদনার তুলনায় কৃষিতে সহায়তার পরিমাণ যৎসামান্য। ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরা জমির উপর অধিকার হারিয়ে চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকে পরিণত হচ্ছে। কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় উৎপাদন নিরুৎসাহিত হচ্ছে, ফলে কৃষিতে প্রবৃদ্ধি ক্রমশ কমে যাচ্ছে। 
কর্মশালায় সকল রাজনৈতিক দলের ইশতেহারে উপকূলীয় বেড়িবাঁধের ব্যবস্থাপনা ইউনিয়ন পরিষদের হাতে হস্তান্তর করা, নারী কৃষকের স্বীকৃতি ও অধিকার নিশ্চিত করা, উপকূলীয় খালগুলো দখলমুক্ত ও উন্মুক্ত করা, কৃষিখাতে তরুণদের অন্তর্ভূক্তির জন্য প্রণোদনা দেয়া, জলবায়ু বাস’চ্যূতসহ ভূমিহীনদের খাসজমি বরাদ্দের হার বৃদ্ধি করা, কৃষিবীমা প্রবর্তন করা, কৃষিপ্রযুক্তির আধুনিকায়নে সরাসরি কৃষকদের ভর্তুকি দেয়া, কৃষিশ্রমিকদের শ্রম-অধিকার নিশ্চিত করা, জলবায়ুসহিষ্ণু ফসলের জাত উদ্ভাবন ও উৎপাদনে অধিক হারে প্রণোদনা দান, সমবায়ভিত্তিক চাষাবাদ-ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা, খাস জলাশয় ও খাসজমিতে কৃষক ও জেলেদের অধিকার নিশ্চিত করা, কৃষিখাতে ভর্তুকি বৃদ্ধি, উপজেলা পর্যায়ে কৃষক-বাজার প্রতিষ্ঠা করা, কৃষিক্ষেত্রে মাঠ পর্যায়ের শিক্ষণ কর্মসূচি গ্রহণ, আমিষের ঘাটতি মোকাবেলায় গবাদিপশু ও হাঁসমুরগি চাষে বিশেষ সহায়তা প্রদান, কৃষিখাতে মাঠভিত্তিক গবেষণা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি এবং গবেষণা ফলাফল দ্রুত বাস্তবায়নের বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করার প্রচেষ্টা থাকবে বলে রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ অঙ্গীকার করেন। 
কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শ্যামল সিংহ রায়, জেলা শাখার সভাপতি আশরাফুজ্জামান বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মানিকুজ্জামান অশোক, সদস্য অরিন্দম মল্লিক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ খুলনা জেলার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির ববি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র খুলনা মহানগর শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক তারিকুল ইসলাম, খুলনা মহানগর মহিলা দলের সভাপতি রেহানা আখতার, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি এইচএম শাহাদৎ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ হোসেন, খুলনা জেলার সাধারণ সম্পাদক স.ম. রেজাউল করিম, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান মন্টু, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির খুলনা জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য দেলোয়ার উদ্দীন দিলু, এসএম ফারুকুল ইসলাম, জাতীয় পার্টি খুলনা মহানগর শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক গাওসুল আজম, জনউদ্যোগ-খুলনার আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট কুদরত-ই-খুদা, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবীর রায়, দৈনিক সমকালের মামুন রেজা, ক্লিন-এর মাহবুব আলম প্রিন্স, সাজ্জাদ হোসেন তুহিন, হাসান মেহেদী প্রমূখ।

Women in Coast suffer for Climate Change: Climate Adaptation Projects Ignored Women’s Vulnerability – Green Groups in Press Conference

Khulna, 18 June 2012
Vulnerable women of coastal zone are ignored in the approved 83 projects under Climate Change Trust Fund (BCCTF) although the Climate Change Strategy and Action Plan (BCCTF) highly emphasized on gender and women vulnerabilities. So far, only one project has been taken in only Bhola districts which focus on women and children’s risks. As the women are severely victimized by impacts of climate change, major efforts should be given on them.

The speakers said it today in a press conference jointly organized by CLEAN (Coastal Livelihood and Environmental Action Network), Participatory Research and Action Network (PRAN) and Population Action International at Hotel Royal International, Khulna. CLEAN chief executive Hasan Mehedi presented the written speech before the journalists from print and electronic media. Environmental economist Professor Anowarul Quadir, civic leader Advocate Firoz Ahmed, senior Information Officer M. Zaved Iqbal and journalist Gouranga Nandy addressed the journalists among others. 

Women in the coastal zone of Bangladesh are highly affected by climate change. They are in 14 times more risk than the male counterpart, said Mr. Mehedi in his written speech. The women have to walk more than 10-12 kilometers for collecting potable water for their families. Sometimes they are subjected to sexual harassment during water collection, said Gouranga Nandy. Professor Anowarul Quadir said that the women can be affected by several reproductive diseases by taking saline water and working hard during conceive period. He said, food grain production is likely to decrease and women will be the first victim of food and nutrition shortage whereas the women are the inventor of local adaptation technologies in Bangladesh. 
Civic leader Advocate Firoz Ahmed said, the projects can be implemented smoothly by involving women as participant who are entitled to the service delivery. He asked the journalists to highlight the problems of women in the coastal zone so that the Government can realize the situation and incorporate the issues in the adaptation plan. He said, adaptation programmes cannot be successful without involving women in them because women are the main force in rural areas of Bangladesh.
In the written speech, the green groups raised 7 point demands including:
  • Clearly defining the vulnerabilities of women due to climate change
  • Approving projects on gender and reproductive health under Bangladesh Climate Change Trust Fund (BCCTF)
  • Reviewing ongoing projects and incorporate gender and reproductive health by redesigning implementation process
  • Establishing a monitoring system for each and every adaptation projects to ensure proper gender mainstreaming
  • Giving priority to the women-headed family, divorcee, widow and women abandoned by husband in climate adaptation projects
  • Development of a set of indicator to assess the climate adaptation projects from gender-aspects, and
  • Launch population control and reproductive health service program under climate adaptation plans.
Amal Saha of daily Janakantha, Quazi Amanullah of daily Star, Abu Tayeb of NTV, Mallick Sudhangsu of daily Sakaler Khabor, HM Alauddin of daily Purbanchal, Hedait Hossain of daily Jugantor, Kamal Hossain of daily Spandan, Harun-Or-Rashid of daily Anirban, Ehteshamul Huq Shaon of daily Amar Desh, Debnath Ranjit Kumar of daily dakkhinanchal, Abul Hasan Himaloy of daily Samakal, Ahmed Musa Ranju of daily Somoyer Khobor, Mahbubur Rahman Munna of Banglanews.24.com, Shariful Islam Salim and Nasim Rahman Kiron of Humanitywatch was present in the press conference among others.

Housing for Cyclone Aila affected Forest Peoples of Dacope and Koyra Upazila under Khulna Districts

Model of a Climate Resilient Small House developed by CLEAN, 2018
Around 650 people are still living in temporary makeshifts on the embankments of Dacope and Koyra Upazila even after 10 years of cyclone Aila, which hit the coastal region of Bangladesh on 25th May 2009.
To ensure secured life in the highly climate vulnerable area of Bangladesh like Dacope and Koyra Upazila under Khulna District, CLEAN started supporting the uprooted forest people who are dependent on the Sundarbans mangrove forest for their lives and livelihoods.
The programme has been started in August 2018 and approximately 50 houses will be constructed by December 2018 under assistance of Friends of the Forest (FOF), United Kingdom.
Contact Person
—————————————————————
Mahbub Alam Prince
Coordinator
CLEAN (Coastal Livelihood and Environmental Action Network)

Video Message from Bangladesh to COP-22

During UNFCCC’s 22nd Conference of Parties (COP-22) in Marrakesh, Morocco, Coastal Livelihood and Environmental Action Network (CLEAN) along with Oxfam in Bangladesh and Campaign for Sustainable Rural Livelihoods (CSRL) organized a video message campaign to the COP-22 leaders demanding Climate Justice for women farmers and the most vulnerable countries like Bangladesh. Here are some of the video messages.
1. Member of Parliament Alhajj Mizanur Rahman Mizan
 
Member of Parliament from Khulna-2 constituency Alhajj Mizanur Rahman Mizan said, as the people of coastal Bangladesh are the most severe victims of climate change, we are entitled to receive only compensation from the developed countries, not loan. Our prime minister raised the issues in UN and Bangladesh Parliament several times. We want to build resilience of the vulnerable people by using those reparation funds. He also demanded not to include loan providing institutions in climate finance.
2. Environmental Economist Professor Anowarul Quadir